Sunday, July 27, 2014

কিডনি সুস্থ রাখার কার্যকরী কিছু উপায় - বাঁচতে হলে জানতে হবে

আপনারা হয়ত অবগত আছেন মানুষের শরীরে এক নিরব ঘাতক হল Renal failure বা কিডনি ফেইলুর । আমরা সকলেই কমবেশি জানি এ রোগের ভোগান্তি কতটা নির্মম আর কষ্টকর হয়ে থাকে। তবে কিছু সাবধানতা অবলম্বন করলে সহজেই এ রোগ এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব। যে কোন রোগ এড়িয়ে যাবার চেষ্টা চালিয়ে যাওয়াটাই হবে প্রতিটি সুস্থ মানুষের জন্য বুদ্ধিমানের কাজ। তাই বিষয় গুলি আমাদের সবারই জানে রাখা ভালো। কিভাবে কিডনি সুস্থ রাখা সম্ভব সে সম্পর্কে নিচে আলোকপাত করা হলো :

কর্মঠ থাকুন :- আপনার শরীরকে কর্মঠ ও সতেজ রাখুন। এজন্য নিয়মিত হাঁটা, দৌড়ানো, সাইক্লিং করা বা সাঁতার কাটার মতো হাল্কা ব্যায়াম করুন। কর্মঠ ও সতেজ শরীরে কিডনি রোগ হবার ঝুঁকি খুব কম থাকে।
কিডনি সুস্থ রাখার কার্যকরী কিছু উপায়
ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখুন :- ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীর শতকরা ৫০ জনেরই কিডনি রোগে আক্রান্ত হবার আশঙ্কা থাকে। রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণে না থাকলে কিডনি নষ্ট হবার ঝুঁকি আরো বেড়ে যায়। তাই ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখুন, নিয়মিত আপনার রক্তের সুগার পরীক্ষা করিয়ে দেখুন তা স্বাভাবিক মাত্রায় আছে কিনা।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখুন :- অনিয়ন্ত্রিত উচ্চ রক্তচাপ কিডনি ফেইলুর হবার প্রধান কারণ। তাই এ রোগ থেকে বাঁচতে অবশ্যই আপনার রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখুন। কোন কারণে তা ১২৯/৮৯ মি. মি. এর বেশি হলে সাথে সাথে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। নিয়মিত ওষুধ সেবন এবং তদসংক্রান্ত উপদেশ মেনে চললেই সহজেই রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়।

পরিমিত আহার এবং ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন :- পরিমিত স্বাস্থ্যকর খাবার খেলে কিডনি রোগ হবার ঝুঁকি কমে যায়। হোটেলের তেল-মশলা যুক্ত খাবার, ফাস্টফুড, প্রক্রিয়াজাত খাবার থেকে বিরত থাকুন। খাবারে অতিরিক্ত লবণ পরিহার করুন। অতিরিক্ত ওজন কিডনির জন্য ঝুঁকিপূর্ণ, তাই সুস্থ থাকতে ওজন কমিয়ে স্বাভাবিক মাত্রায় নিয়ে আসুন।

ধূমপান পরিহার করুন :- ধ‍ূমপায়ীদের কিডনিতে ক্যান্সার হবার সম্ভাবনা অধূমপায়ীদের তুলনায় শতকরা ৫০ গুণ বেশি। ধূমপানের কারণে কিডনিতে রক্তপ্রবাহ কমে যেতে থাকে। ফলে কিডনির কর্মক্ষমতাও হ্রাস পেতে শুরু করে। কিডনি সংক্রান্ত যাবতীয় রোগ ও চিকিৎসা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে দেখুন >>>

অপ্রয়োজনীয় ওষুধ সেবন :- অনেকেই অপ্রয়োজনে দোকান থেকে নানা ধরনের ওষুুধ কিনে সেবন করেন। এদের মধ্যে ব্যথার ওষুধ শীর্ষ তালিকায় রয়েছে। সব ওষুধই কিডনির জন্য কমবেশি ক্ষতিকর, আর এর মধ্যে ব্যথার ওষুধ সবার চেয়ে এগিয়ে। তাই যে কোন ওষুধ সেবনের আগে অবশ্যই নিবন্ধিত চিকিৎসকের কাছ থেকে পরামর্শ নিন।

নিয়মিত কিডনি পরীক্ষা করান :- কারো যদি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, ওজন বেশি এবং পরিবারের কেউ কিডনি রোগে আক্রান্ত থাকে তাহলে ধরে নিতে হবে তার কিডনি রোগে আক্রান্ত হবার ঝুঁকি অনেক বেশি। তাই এসব কারণ থাকলে অবশ্যই নিয়মিত কিডনি পরীক্ষা করাতে হবে।

কিডনি ফেইলুর হয়ে গেলে ভাল করার কোন সুযোগ নেই অ্যালোপ্যাথি চিকিত্সায়। ডায়ালাইসিস কিংবা প্রতিস্থাপন করা সম্ভব যদিও, সেটাও ততটা কার্যকরী না। কিন্তু হোমিওপ্যাথিক চিকিত্সকরা খুব সফল ভাবেই এর ট্রিটমেন্ট দিয়ে ভালো করতে পারেন। তবে এর জন্য রেজিস্টার্ড এবং অভিজ্ঞ কোন হোমিও চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে প্রপার ট্রিটমেন্ট দেয়া বাঞ্ছনীয়। তবে যে কোন রোগ এড়িয়ে যাবার চেষ্টা চালিয়ে যাওয়াটাই হবে প্রতিটি সুস্থ মানুষের জন্য বুদ্ধিমানের কাজ। কারণ আমরা চাই না কেউ অসস্থ হয়ে ডাক্তারের কাছে যাক। ভাল থাকবেন।

কিডনি সুস্থ রাখার কার্যকরী কিছু উপায় - বাঁচতে হলে জানতে হবে ডাক্তার আবুল হাসান 5 of 5
আপনারা হয়ত অবগত আছেন মানুষের শরীরে এক নিরব ঘাতক হল Renal failure বা কিডনি ফেইলুর । আমরা সকলেই কমবেশি জানি এ রোগের ভোগান্তি কতটা নির্মম আর ...

ডাঃ হাসান (ডিএইচএমএস, পিডিটি - বিএইচএমসি, ঢাকা)

বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ, ঢাকা

যৌন ও স্ত্রীরোগ, চর্মরোগ, কিডনি রোগ, হেপাটাইটিস, লিভার ক্যান্সার, লিভার সিরোসিস, পাইলস, IBS, পুরাতন আমাশয়সহ সকল ক্রনিক রোগে হোমিও চিকিৎসা নিন।

১০৬ দক্ষিন যাত্রাবাড়ী, শহীদ ফারুক রোড, ঢাকা ১২০৪, বাংলাদেশ
ফোন :- ০১৭২৭-৩৮২৬৭১ এবং ০১৯২২-৪৩৭৪৩৫
ইমেইল:adhunikhomeopathy@gmail.com
স্বাস্থ্য পরামর্শের জন্য যেকোন সময় নির্দিধায় এবং নিঃসংকোচে যোগাযোগ করুন।
পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াহীন সর্বাধুনিক ও সফল হোমিওপ্যাথিক চিকিত্সা নিন

কিডনি সমস্যা

  • কিডনি পাথর
  • কিডনি সিস্ট
  • কিডনি ইনফেকশন
  • কিডনি বিকলতা
  • প্রসাবে রক্ত
  • প্রস্রাবের সময় ব্যথা
  • প্রসাব না হওয়া
  • শরীর ফুলে যাওয়া

লিভার সমস্যা

  • ফ্যাটি লিভার
  • লিভার অ্যাবসেস (ফোঁড়া)
  • জন্ডিস
  • ভাইরাল হেপাটাইটিস
  • ক্রনিক হেপাটাইটিস
  • HBsAg (+ve)
  • লিভার সিরোসিস
  • লিভার ক্যানসার

পুরুষের সমস্যা

  • যৌন দুর্বলতা,দ্রুত বীর্যপাত
  • শুক্রতারল্য,ধাতু দৌর্বল্য
  • হস্তমৈথুন অভ্যাস
  • হস্তমৈথনের কুফল
  • অতিরিক্ত স্বপ্নদোষ
  • পুরুষত্বহীনতা, ধ্বজভঙ্গ
  • পুরুষাঙ্গ নিস্তেজ
  • সিফিলিস, গনোরিয়া

স্ত্রীরোগ সমূহ

  • স্তন টিউমার
  • ডিম্বাশয়ে টিউমার
  • ডিম্বাশয়ের সিস্ট
  • জরায়ুতে টিউমার
  • জরায়ু নিচে নেমে আসা
  • অনিয়মিত মাসিক
  • যোনিতে প্রদাহ,বন্ধ্যাত্ব
  • লিউকোরিয়া, স্রাব

পরিপাকতন্ত্রের সমস্যা

  • পেটে গ্যাসের সমস্যা
  • ক্রনিক গ্যাস্ট্রিক আলসার
  • নতুন এবং পুরাতন আমাশয়
  • আইবিএস (IBS)
  • আইবিডি (IBD)
  • তীব্রতর কোষ্ঠকাঠিন্য
  • পাইলস, ফিস্টুলা
  • এনাল ফিসার

অন্যান্য স্বাস্থ্য সমস্যা

  • বাতজ্বর
  • লিউকেমিয়া, থ্যালাসেমিয়া
  • সাইনোসায়টিস
  • এলাৰ্জি
  • মাইগ্রেন
  • অনিদ্রা
  • সোরিয়াসিস (Psoriasis)
  • সাধারণ অসুস্থতা