Friday, July 18, 2014

ফুসফুসে ক্যান্সার ! কখন, কিভাবে, কোথায় চিকিৎসা নিবেন।

স্বাভাবিকভাবেই ক্যান্সার নামক শব্দটি আমাদের কাছে একটি ভীতিকর শব্দ। মরণঘাতী হিসেবে এইডস-এর পরেই ক্যান্সারের অবস্থান। দেহের অন্যান্য স্থানের ক্যান্সারের মতো ফুসফুসের ক্যান্সারও একটি মারাত্মক ব্যাধিই শুধু নয় বরং আরও বেশি মারাত্মক ও জটিল। প্রতি বছর বিশ্বের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মানুষ ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে। যদিও মহিলাদের চেয়ে পুরুষই এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে বেশি। ইদানীং মহিলাদের মাঝে ধূমপানের মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ায় মহিলারাও অধিক হারে ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে।

ফুসফুসের ক্যান্সার কোনো জীবাণুঘটিত রোগ নয়। বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতি থাকলেও এ রোগ হতে সম্পূর্ণ আরোগ্য লাভের কোনো চিকিৎসা পদ্ধতি অদ্যাবধি আবিষ্কার হয়নি অ্যালোপ্যাথিতে। যদি একেবারে প্রাথমিক অবস্থায় রোগটি ধরা পড়ে তবে তা থেকে মোটামুটি আরোগ্য লাভ করা যায়। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই প্রাথমিক অবস্থায় রোগ নিরূপণ দুঃসাধ্যই বলা চলে। জীবাণুঘটিত রোগ না হওয়ায় এর বিরুদ্ধে উপযুক্ত প্রতিরোধক বা প্রতিষেধক আবিষ্কারে বিজ্ঞানীরা সাফল্য অর্জনে সক্ষম হয়নি। তাই জনসচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে যতটা সম্ভব প্রাথমিক অবস্থায় রোগ নির্ণয়ে সাফল্য অর্জনের মাধ্যমে মৃত্যুহার এবং এ রোগের কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক বিপন্নতা কমানোর চেষ্টা সামাজিক আন্দোলনে রূপান্তরিত হচ্ছে।
ফুসফুসে ক্যান্সার ! কখন, কিভাবে, কোথায় চিকিৎসা নিবেন।
ফুসফুসের ক্যান্সারের জন্য অন্যতম দায়ী ধূমপান। যে কারণে যদিও রোগটি তুলনামূলকভাবে পুরুষদের বেশি, ইদানীংকালে নারীদের মধ্যে ধূমপানের মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ায় তারাও উল্লেখযোগ্য হারে এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। ধূমপায়ী ব্যক্তিরাই এ রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকেন বেশি। তবে অধূমপায়ীদের যে এ রোগ হতে পারে না তা কিন্তু নয়। নগরায়নের এই বিশ্বে শিল্প কারখানা ও গাড়ি নির্গত কালো ধোঁয়াও ফুসফুসে ক্যান্সারের কারণ হতে পারে। এছাড়া বিভিন্ন রাসায়নিক পদার্থ যেমন-ক্রোমিয়াম, ক্যাডমিয়াম, অ্যাসবেসটস ইত্যাদি এ রোগ সৃষ্টি করতে পারে। ফুসফুসে ক্যান্সার সৃষ্টিতে অ্যাসবেসটসের প্রভাব এতো বেশি যে, সমসাময়িক কালে জাহাজশিল্পে অ্যাসবেসটসের ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়েছে। বর্তমান উন্নত বিশ্বে পারমাণবিক বর্জ্যও ক্যান্সারের একটি বড় কারণ হিসাবে পরিগণিত হচ্ছে।

ভূপাল কিংবা চেরনোবিল গ্যাস দুর্ঘটনার পর বর্তমান সময়ে সেসব অঞ্চলের মানুষের মাঝে ক্যান্সার আক্রান্তের সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে। ফুসফুসের প্রদাহজনিত রোগ যেমন- যক্ষ্মা, নিউমোনিয়া ভালো হওয়ার পর ফুসফুসের আক্রান্ত স্থানে ক্যান্সার দেখা দিতে পারে।ফুসফুসের যে কোনো স্থান ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারে। এ রোগের উপসর্গ বা লক্ষণ সবার ক্ষেত্রে একরকম হয় না। সাধারণভাবে এ রোগে আক্রান্ত ব্যক্তি কাশি, কাশির সঙ্গে কফ বা রক্ত, শ্বাসকষ্ট, আক্রান্তের দিকে বুকে ব্যথা, হালকা জ্বর, খাদ্যে অনীহা, ওজন হ্রাস ইত্যাদি উপসর্গ বা লক্ষণ নিয়ে হাজির হতে পারে।অ্যালোপ্যাথি ডাক্তাররা বলেন ফুসফুসের ক্যান্সার নিরাময়যোগ্য নয়।

তাই এর কারণটি প্রতিরোধযোগ্য। ধূমপান এর প্রধান কারণ। জনসচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে ধূমপান প্রতিরোধ করা গেলে এ রোগের উদ্ভব ও প্রতিরোধ করা যাবে বহুলাংশে। কাজেই সচেতনতা তৈরির মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব।
তবে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা বিজ্ঞানে এর রয়েছে ভালো চিকিৎসা। রোগের প্রথম বা দ্বিতীয় অবস্থায় এই রোগকে অনেক ক্ষেত্রেই নির্মূল করা যায় হোমিও চিকিৎসার মাধ্যমে। কিন্তু পরিতাপের বিষয় হল - ফুসফুসে ক্যান্সার নিয়ে যখন রোগীরা হোমিও ডাক্তারের কাছে আসে তখন রোগটি এতটাই তীব্রতর অবস্থায় থাকে যে - সে অবস্থা থেকে ফিরিয়ে আনা অনেক দুঃসাধ্য হয়ে পড়ে। আর তখন দোষটা এসে পড়ে হোমিওপ্যাথির উপর। অথচ এর আগে বহু এলোপ্যাথি ডাক্তার দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করে এসেছে কিন্তু তাদের কোন দোষ নেই।  অবশেষে বলব - যদি এই সকল জটিল রোগ থেকে রেহাই পেতে চান তাহলে অযথা এলোপ্যাথি ডাক্তারদের পেছনে টাকা পয়সা নষ্ট না করে প্রাথমিক অবস্থায়ই রেজিস্টার্ড এবং অভিজ্ঞ একজন হোমিও ডাক্তারের পরামর্শক্রমে ট্রিটমেন্ট নিন - আশা করি সুফল পাবেন।

ফুসফুসে ক্যান্সার ! কখন, কিভাবে, কোথায় চিকিৎসা নিবেন। ডাক্তার আবুল হাসান 5 of 5
স্বাভাবিকভাবেই ক্যান্সার নামক শব্দটি আমাদের কাছে একটি ভীতিকর শব্দ। মরণঘাতী হিসেবে এইডস-এর পরেই ক্যান্সারের অবস্থান। দেহের অন্যান্য স্থানের...

ডাক্তার আবুল হাসান (ডিএইচএমএস - বিএইচএমসি, ঢাকা)

বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ, ঢাকা

যৌন ও স্ত্রীরোগ, চর্মরোগ, কিডনি রোগ, হেপাটাইটিস, লিভার ক্যান্সার, লিভার সিরোসিস, পাইলস, IBS, পুরাতন আমাশয়সহ সকল ক্রনিক রোগে হোমিও চিকিৎসা নিন।

১০৬ দক্ষিন যাত্রাবাড়ী, শহীদ ফারুক রোড, ঢাকা ১২০৪, বাংলাদেশ
ফোন :- ০১৭২৭-৩৮২৬৭১ এবং ০১৯২২-৪৩৭৪৩৫
ইমেইল:adhunikhomeopathy@gmail.com
স্বাস্থ্য পরামর্শের জন্য যেকোন সময় নির্দিধায় এবং নিঃসংকোচে যোগাযোগ করুন।
পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াহীন সর্বাধুনিক ও সফল হোমিওপ্যাথিক চিকিত্সা নিন

কিডনি সমস্যা

  • কিডনি পাথর
  • কিডনি সিস্ট
  • কিডনি ইনফেকশন
  • কিডনি বিকলতা
  • প্রসাবে রক্ত
  • প্রস্রাবের সময় ব্যথা
  • প্রসাব না হওয়া
  • শরীর ফুলে যাওয়া

লিভার সমস্যা

  • ফ্যাটি লিভার
  • লিভার অ্যাবসেস (ফোঁড়া)
  • জন্ডিস
  • ভাইরাল হেপাটাইটিস
  • ক্রনিক হেপাটাইটিস
  • HBsAg (+ve)
  • লিভার সিরোসিস
  • লিভার ক্যানসার

পুরুষের সমস্যা

  • যৌন দুর্বলতা,দ্রুত বীর্যপাত
  • শুক্রতারল্য,ধাতু দৌর্বল্য
  • হস্তমৈথুন অভ্যাস
  • হস্তমৈথনের কুফল
  • অতিরিক্ত স্বপ্নদোষ
  • পুরুষত্বহীনতা, ধ্বজভঙ্গ
  • পুরুষাঙ্গ নিস্তেজ
  • সিফিলিস, গনোরিয়া

স্ত্রীরোগ সমূহ

  • স্তন টিউমার
  • ডিম্বাশয়ে টিউমার
  • ডিম্বাশয়ের সিস্ট
  • জরায়ুতে টিউমার
  • জরায়ু নিচে নেমে আসা
  • অনিয়মিত মাসিক
  • যোনিতে প্রদাহ,বন্ধ্যাত্ব
  • লিউকোরিয়া, স্রাব

পরিপাকতন্ত্রের সমস্যা

  • পেটে গ্যাসের সমস্যা
  • ক্রনিক গ্যাস্ট্রিক আলসার
  • নতুন এবং পুরাতন আমাশয়
  • আইবিএস (IBS)
  • আইবিডি (IBD)
  • তীব্রতর কোষ্ঠকাঠিন্য
  • পাইলস, ফিস্টুলা
  • এনাল ফিসার

অন্যান্য স্বাস্থ্য সমস্যা

  • বাতজ্বর
  • লিউকেমিয়া, থ্যালাসেমিয়া
  • সাইনোসায়টিস
  • এলাৰ্জি
  • মাইগ্রেন
  • অনিদ্রা
  • সোরিয়াসিস (Psoriasis)
  • সাধারণ অসুস্থতা