Friday, December 22, 2017

ক্যান্সার প্রতিরোধসহ লিচুর রয়েছে অবাক করা গুণ !

লিচু শুধু খেতেই সুস্বাদু নয়, পুষ্টিগুণের দিক থেকেও অনন্য। লিচুতে প্রচুর পানি থাকে। তাই গরমকালে লিচু না খেলেই নয়। দীর্ঘমেয়াদে শরীরের জন্য লিচু খুব উপকারী। কারণ লিচুতে রয়েছে গাজরের চেয়ে বেশি বিটা ক্যারোটিন।

১০০ গ্রাম লিচুতে রয়েছে:- প্রতি ১০০ গ্রাম লিচুতে আছে: জলীয় অংশ ৮৪.১ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ১০ মি.গ্রা, মোট খনিজ ০.৫ গ্রাম, লৌহ ০.৭ মি.গ্রা, আঁশ ০.৫ গ্রাম, ক্যারোটিন (মাইক্রোগ্রাম) ০.০১ গ্রাম, খাদ্যশক্তি ৬১ কিলোক্যালরি, ভিটামিন বি-১ ০.০২ গ্রাম, আমিষ ১.১ গ্রাম, ভিটামিন ০.০৬ মি.গ্রা, চর্বি ০.২ গ্রাম, ভিটামিন সি ৩১ মি.গ্রা এবং শর্করা ১৩.৬ গ্রাম।
লিচুর ভেষজ গুণাগুণ অবাক করার মতো। আসুন জেনে নিই সুস্বাদু এই ফলের আরও কিছু গুণাগুণ সম্পর্কে-
ক্যান্সার প্রতিরোধসহ লিচুর রয়েছে অবাক করা গুণ !
রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়:- লিচুতে প্রচুর পরিমাণে অ্যাসকোরবিক অ্যাসিড ও ভিটামিন সি রয়েছে যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

হজমের সমস্যা দূর করে:- আঁশজাতীয় ফল লিচু নিয়মিত খেলে দূর হবে হজমের গণ্ডগোল। এছাড়া কোষ্ঠকাঠিন্য ও অ্যাসিডিটির সমস্যা দূর করতেও এ মৌসুমি ফলের জুড়ি নেই।

অ্যান্টি-ভাইরাল হিসেবে:- লিচুতে থাকা শক্তিশালী অ্যান্টি-ভাইরাল উপদান দূরে রাখে বিভিন্ন ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া থেকে।

রক্ত সঞ্চালন বাড়াতে:- লিচুতে রয়েছে কপার যা শরীরের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে। এছাড়া এতে থাকা আয়রন নতুন রক্তকোষের জন্ম দেয়।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে:- উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভুগলে নিয়মিত লিচু খেতে পারেন। এটি ফ্লুইড নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করবে। লিচুতে থাকা প্রচুর পরিমাণে পটাসিয়াম ও স্বল্প সোডিয়াম রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে সুস্থ রাখে শরীর।

সুন্দর ত্বকের জন্য:- লিচু খেলে ত্বক থাকে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল। এটি ত্বকের বলিরেখা ও কালচে দাগ দূর করে ত্বক পরিষ্কার রাখে।

মেদ কমাতে:- লিচুতে প্রচুর পানি ও আঁশ রয়েছে যা নিশ্চিন্তে রাখতে পারেন আপনার দৈনন্দিন ডায়েট চার্টে। মিষ্টি ও রসালো লিচুতে কোনও ধরনের ক্ষতিকর ফ্যাট নেই।

শক্তিশালী হাড়ের জন্য:- লিচুতে রয়েছে ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, ম্যাংগানিজ ও কপার। এগুলো ক্যালসিয়াম শোষণ করতে সাহায্য করে ও হাড় শক্তিশালী রাখে।

হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি কমায়:- হৃদ্‌যন্ত্র সুস্থ-সবল রাখতে নিয়মিত লিচু খাওয়া যেতে পারে। লিচুতে যে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট আছে, তা হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি কমিয়ে হৃদ্‌যন্ত্র ভালো রাখে।

চোখ ভালো রাখে:- চোখের সুরক্ষায় লিচু খেতে পারেন। লিচুতে আছে বিশেষ ফাইটোকেমিক্যাল, যাতে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ও চোখের সুরক্ষার জন্য দরকারি উপাদান থাকে। চোখের ছানি পড়ার সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে লিচু।

ওজন কমাতে সাহায্য করে:- লিচুতে প্রচুর পানি, ফাইবারের পাশাপাশি ফ্যাট কম থাকে। লিচু খেলে শরীরে ক্যালরি কম যুক্ত হয়। ফলে ওজন কমাতে সাহায্য করে লিচু।

ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রতিরোধে:- লিচুতে রয়েছে ক্যানসার প্রতিরোধক উপাদান, বিশেষ করে নারীদের স্তন ক্যান্সারের ক্ষেত্রে। তাই নারীদের জন্য বিশেষ উপযোগী ফল এটি। এছাড়াও লিচুতে রয়েছে যথেষ্ট অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।


লিচু শরীর ঠাণ্ডা রাখে। তৃষ্ণা মেটায় ও শরীরের বল বাড়ায়। পরিমিত খেলে শরীরের বায়ু, কফ ও পিত্ত নাশ করে। অত্যধিক ক্লান্তিতে বা দীর্ঘ রোগভোগের পর দুর্বলতায় প্রতিদিন চার-পাঁচটি লিচু সামান্য লবণ মিশিয়ে খেলে দারুণ উপকার পাওয়া যায়। মস্তিষ্কের দুর্বলতায় স্মৃতিবিভ্রম ঘটলে ভুলো মন মানুষজন দিনে আট দশটা লিচু লবণ মিশিয়ে খেলে স্মৃতি স্বাভাবিক হয়।

 হৃদরোগী ও লিভারের রোগীদের পক্ষে লিচু উপকারী। মৌসুমের সময় দু-বেলা চার-পাঁচটি করে লিচু খেলে বয়স বাড়লেও শরীরে লাবণ্য বজায় থাকে। যকৃতের রোগে ভুগলে ঠিকমতো খিদে হয় না। দাস্ত অপরিষ্কার হয়, খাদ্যে অরুচি ভাব হয়। এক্ষেত্রে দিনে দুবার লিচুর শরবত খেলে বা দু-বেলা ৫-৭টি লিচু খেলে যথেষ্ট উপকার পাওয়া যায়। বোলতা, বিছে কামড়ালে পাতার রস ব্যবহার করা হয়। কাশি, পেটব্যথা, টিউমার এবং গ্র্যান্ডের বৃদ্ধি দমনে লিচু ফল কার্যকর। চর্মরোগের ব্যথায় লিচু বীজ ব্যবহৃত হয়। পানিতে সিদ্ধ লিচুর শেকড়, বাকল ও ফুল গলার ঘা সারায়। কচি লিচু শিশুদের বসন্ত রোগে এবং বীজ অম্ল ও স্নায়বিক যন্ত্রণার ওষুধ হিসেবে ব্যবহার হয়। বাকল ও শিকড়ের ক্বাথ গরম পানিসহ কুলি করলে গলার কষ্ট উপশম হয়।

ক্যান্সার প্রতিরোধসহ লিচুর রয়েছে অবাক করা গুণ ! ডাক্তার আবুল হাসান 5 of 5
লিচু শুধু খেতেই সুস্বাদু নয়, পুষ্টিগুণের দিক থেকেও অনন্য। লিচুতে প্রচুর পানি থাকে। তাই গরমকালে লিচু না খেলেই নয়। দীর্ঘমেয়াদে শরীরের জন্য লি...

ডাক্তার আবুল হাসান (ডিএইচএমএস - বিএইচএমসি, ঢাকা)

বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ, ঢাকা
যৌন ও স্ত্রীরোগ, লিভার, কিডনি ও পাইলসরোগ বিশেষজ্ঞ হোমিওপ্যাথ
১০৬ দক্ষিন যাত্রাবাড়ী, শহীদ ফারুক রোড, ঢাকা ১২০৪, বাংলাদেশ
ফোন :- ০১৭২৭-৩৮২৬৭১ এবং ০১৯২২-৪৩৭৪৩৫
ইমেইল:adhunikhomeopathy@gmail.com
স্বাস্থ্য পরামর্শের জন্য যেকোন সময় নির্দিধায় এবং নিঃসংকোচে যোগাযোগ করুন।